Home / Lifestyle / সৌরভের হার্ট অ্যা’টা’ক, মৃ’ত্যু’র ভয়ে তসলিমা

সৌরভের হার্ট অ্যা’টা’ক, মৃ’ত্যু’র ভয়ে তসলিমা

সাবেক ক্রিকেটার ও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলিকে নিয়ে সম্প্রতি ফেসবুকে লিখেছেন ভারতীয় উপমহাদেশের অন্যতম আপোসহীন নারীবাদী লেখিকা তসলিমা নাসরিন।

ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, ‘সৌরভের মতো ফিট ছেলেরও কিনা হার্ট অ্যাটাক। শরীরে কোনও মেদ নেই, কিন্তু হার্টের আর্টারিতে মেদ। এর কারণ জিন। ভবিষ্যৎ কপালে লেখা থাকে না, লেখা থাকে জিনে। সুতরাং যত ফিটই হও না কেন, জিম করে দিন রাত যতই পার করো না কেন, জিন যা করার তা করবে।’

বাবার হার্ট অ্যাটাকের কথা জানিয়ে তসলিমা লিখেছেন, ‘আমার বাবার হয়েছিল হার্ট অ্যাটাক। আমার দুই দাদারই হয়েছিল হার্ট অ্যাটাক। একজনের হার্টের সব আর্টারি ব্লক ছিল, বাইপাস সার্জারি হয়েছে। আরেকজন প্রথম অ্যাটাকে বেঁচে গেলেও, দ্বিতীয় অ্যাটাকে বাঁচেনি।’

‘এই ফ্যামিলি হিস্ট্রি নিয়ে যখন আমি জিম করি, তখন ভাবি, জিম আমাকে বাঁচাবে না, বাঁচালে জিন বাঁচাবে।’কিন্তু জিনোম থেরাপি করে খারাপ জিনগুলো ফেলে দেবো সে ক্ষমতা আমার নেই জানিয়ে নারীবাদী এই লেখক বলেন,‘অগত্যা যা হবে তা হবে বলে দিন যাপন করি। জানি যে কোনও মুহূর্তে দরজায় কড়া নড়ার শব্দ পাবো।’

তিনি লেখেন, বাপ মা ভাই বোন কার কোন রোগ হয়েছিল, কে কোন বয়সে মারা গেছে, এই তথ্যই ইঙ্গিত দেবে আমার কী আছে, কী হবে, এবং আমি কবে। আমার ফ্যামিলির লোকেরা কেউই দীর্ঘজীবী নয়। সুতরাং আমিও লোলচর্ম হবো না, ফোকলা দাঁত হবো না, লাঠি হাতে নুয়ে নুয়েও হাঁটবো না। সে বয়সে আমাকে আমার জিনই পৌঁছোতে দেবে না।

সৌরভ দ্রুত চিকিৎসা পেয়েছেন বলে দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন এমন মন্তব্য করে তিনি লিখেছেন, ‘মাঝে মাঝে আমি ভাবি, আমার যদি হার্ট অ্যাটাক হয়, পোষা বেড়ালটি কিছুক্ষণ মিউ মিউ করবে, কিন্তু আমাকে হাসপাতালে তো ও নিয়ে যেতে পারবে না। ভেতর থেকে দরজা বন্ধ, কেউ তো ঘরে ঢুকতেও পারবে না। না, ওসব ভেবে লাভ নেই। জিন যদি সিদ্ধান্ত নেয়, প্রথম অ্যাটাকে আমাকে মারবে না, তাহলে মরবো না।’

About admin

Check Also

টিউশনির টাকা জমিয়ে দৃষ্টিনন্দন বাড়ি করলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী!

ফরিদপুর সরকারি রাজেন্দ্র বিশ্ব-বিদ্যালয় কলেজের “সমাজবিজ্ঞান” বিভাগের শেষবর্ষের ছাত্র অনল কুমার দাস (২৩)। তিনি ফেদু …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *